সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

Self-defense-from-Dog.jpg

সহজ উপায় কুকুর থেকে আত্মরক্ষার কিছু কৌশল

যদি কুকুর আপনাকে আক্রমণ করে বসে তবে পাথরের ন্যায় শুয়ে পড়ুন, শরীরকে বাঁকিয়ে নিবেন। মুখের দিকে কামড়ানো থেকে নিজকে রক্ষা করুন। হাত দিয়ে মুখ চেপে রাখুন। আশপাশের লোক থেকে সাহায্য পাবার সম্ভাবণা থাকলে ডাকতে থাকবেন। সে সম্ভাবণা না থাকলে চিৎকার না করাই ভাল।

বিশ্বে প্রতিবছর পঞ্চান্ন হাজারের অধিক লোক জলাতঙ্ক রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। এর মধ্যে এশিয়া মহাদেশে মারা যায় ৩১ হাজার (৫৬%)। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, আমাদের দেশে প্রতি বছর ২ হাজারের অধিক লোক মারা যায়। প্রধানত কুকুরের কামড়েই আমাদের দেশের মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হয়। তাই কুকুর হতে আমাদের সাবধান থাকতে হবে।

চলুন জানা এখন কিছু অনুসরণীয় সাবধানতা ও আত্মরক্ষার কৌশল :

  • কুকুরকে বিরক্ত করবেন না। বিশেষত খাওয়া, ঘুম ও বাচ্চার যত্ন নেয়ার সময় কোনভাবেই বিরক্ত করবেন না।
  • বেঁধে রাখা কুকুর বা কোন দেয়ালের আড়ালে আটকে থাকা কুকুরের কাছে যাবেন না।
  • কুকুরের বাচ্চার কাছে যাবেন না, ধরবেন না। এতে মা কুকুরটি বাচ্চাকে রক্ষার জন্য আপনাকে কামড়াতে পারে।
  • কুকুরের নিকট দিয়ে দৌঁড়াবেন না বা দ্রুত ছোটাছুটি করবেন না।
  • সরাসরি কুকুরের চোখে চোখ রাখবেন না।
  • কুকুর কাছে দিয়ে যেতে হলে ভীত হবেন না। কুকুরকে বুঝতে দিবেন না যে আপনি কুকুরকে ভয় পাচ্ছেন।

যদি কোন পাগলা কুকুর অথবা উত্তেজিত কুকুর আপনার কাছে আসে তবে:

  • স্থির হয়ে দাঁড়াবেন। মাটির দিকে তাকিয়ে আস্তে আস্তে পিছনের দিকে হাঁটতে থাকবেন।
  • কখনই ঘুরে দৌঁড় দিবেন না।

যদি কুকুর রাগে গরগর বা গোঁ গোঁ শব্দ করে কাছে আসে তবে:

  • দুই হাত শরীরের দু’পাশে চেপে স্থির হয়ে দাঁড়াবেন।
  • এসময় কুকুর আপনার হাত শোঁকতে থাকলে শোঁকতে দিবেন। সাধারণত হাতের ঘ্রাণ নিয়ে কুকুর চলে যাবে।

যদি কুকুর আপনাকে আক্রমণ করে বসে তবে:

  • পাথরের ন্যায় শুয়ে পড়ুন, শরীরকে বাঁকিয়ে নিবেন। মুখের দিকে কামড়ানো থেকে নিজকে রক্ষা করুন। হাত দিয়ে মুখ চেপে রাখুন। আশপাশের লোক থেকে সাহায্য পাবার সম্ভাবণা থাকলে ডাকতে থাকবেন। সে সম্ভাবণা না থাকলে চিৎকার না করাই ভাল।

পরিশেষে, বিপদে পড়ে গেলে মাথা ঠাণ্ডা রেখে উপর্যুক্ত কাজগুলো করবেন। তবে হাত দিয়ে বিপদ ডেকে আনবেন না। অর্থাৎ করণীয় জেনেই ভাববেন না কুকুর আপনাকে কামড়াবে না। সাবধান থাকবেন।

-
লেখক: চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু)।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।