সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

Brazilian-Carrot-Cake.jpg

গাজরের কেক পুষ্টিগুনে ভরপুর ব্রাজিলিয়ান ক্যারট কেক

পুষ্টিগুনে ভরপুর গাজর দিয়ে তৈরি এই ব্রাজিলিয়ান ক্যারট কেকটি বাচ্চারা তো পছন্দ করে খাবেই সাথে বড়রাও খাবে।

কেক খেতে ভালবাসেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। বিশেষ করে ঘরে তৈরি কেক এর মাধ্যমে ছোট বাচ্চাদের পুষ্টির চাহিদা অনেকটা পূরণ করা সম্ভব। বাইরের ভেজাল খাবার না দিয়ে ঘরে তৈরি মজাদার এই কেকটি পরিবারের সবাইকে দিতে পারেন। অনেক বাচ্চারাই সবজি খেতে চায় না বা পছন্দ করে না। তাই তাদেরকে বিকল্প উপায়ে সবজি খাওয়ানোর পথ খুঁজে বের করতে হয় মায়েদের।

পুষ্টিগুনে ভরপুর গাজর দিয়ে তৈরি এই ব্রাজিলিয়ান ক্যারট কেকটি বাচ্চারা তো পছন্দ করে খাবেই সাথে বড়রাও খাবে। অপূর্ব একটি প্রাকৃতিক রঙের এই কেকটির সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে খুব সহজে এবং কম ঝামেলায় তৈরি করা যায়। ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে কেকের মিশ্রণটি তৈরি করে নিতে পারেন এজন্য বিটারও প্রয়োজন নেই। অত্যন্ত মজাদার এই কেকটির উপরে পছন্দ মতো টপিং দিতে পারেন।

উপকরণ:

  • মধ্যম আকৃতির গাজর: ৩টি
  • ডিম: ৩টি
  • তেল: ৩/৪ কাপ
  • দুধ: ১/৪ কাপ
  • ময়দা: ২ কাপ
  • চিনি: দেড় কাপ
  • বেকিং পাউডার: ১ টেবিল চামচ

প্রণালী:
গাজর কেটে ছোট টুকরো করে নিয়ে ব্লেন্ডারে গাজর, ডিম, দুধ দিয়ে ৫ মিনিটের মত ব্লেন্ড করে তাতে আবার চিনি মিশিয়ে ব্লেন্ড করুন আরো কিছুক্ষন।

একটি পাত্রে ময়দা নিয়ে তাতে বেকিং পাউডার মিশিয়ে রাখুন। এবার ময়দার সাথে গাজরের ব্লেন্ড করা মিশ্রণ ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে তেল ব্রাশ করা বেকিং ট্রেতে মিশ্রণটি ঢেলে ১৮০ ডিগ্রী সেলসিয়াসে ৪৫ মিনিট বা কেক হওয়ার পর্যন্ত বেক করুন।

কেক হয়ে গেলে বের করে ঠাণ্ডা হতে দিন। এবার উপরে উইপ ক্রিম বা চকলেট সিরাপ দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

সবচেয়ে ভালো হয় কেক তৈরি করে ফ্রীজে না ঢুকিয়ে কিছুটা গরম থাকতেই যদি খাওয়া যায়। এই স্বাদটাই অন্যরকম একধরনের স্বাদ।

-
লেখক: জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ; এক্স ডায়েটিশিয়ান,পারসোনা হেল্‌থ; খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান (স্নাতকোত্তর) (এমপিএইচ); মেলাক্কা সিটি, মালয়েশিয়া।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।