সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

image_24.jpg

ভ্রমণে বমিকে না বলবেন যেভাবে

বেড়াতে যেতে মন চায়, কিন্তু বেড়ানোর নামে গায়ে জ্বর উঠে, যখন মনে হয় গাড়িতে উঠলে বমি হয়। যাদের এই সমস্যা আছে তাদের বেড়াতে যাওয়া এক আতঙ্কের নাম। তার উপর সামনে ঈদ। গ্রামের বাড়ি কোথাও বেড়াতে যেতে চাইলেও বমির জন্য সে ভ্রমণ হয়ে উঠে বিরক্তকর।

এই সমস্যা থেকে মু্ক্তি পেতে আপনি এই বিষয়গুলো মাথায় রাখুন দেখুন উপকৃত হলেও হতে পারেন।

* প্রথমেই ভ্রমণটাকে উপভোগ করুন। মনের মধ্যে ভালো লাগা আনুন। অস্বস্তিকর বিষয়গুলো এড়িয়ে চলুন। ভুলে যান আপনার খারাপ লাগা।

* বেড়াতে বের হওয়ার সময় ভারি ও মসলাদার খাবার না খাওয়ায় ভালো। হালকা খাবার বা জুস খেতে পারেন।

* ভ্রমণে যাওয়ার সময় অবশ্যই আরামদায়ক পোশাক পরবেন না হলে অস্বস্তি আরো বেশি হবে।

* সাথে করে খাবার পানি নিন। খারাপ লাগলে একটু একটু করে পানি পান করুন। 

* সাথে করে আদা, কমলা বা মালটা কিংবা লেবু নিয়ে নিন। কোনো বাজে গন্ধ নাকে এলে এগুলোর গন্ধ নিন বা অল্প অল্প করে চিবোতে থাকুন, দেখুন বেশ ভালো লাগবে।

* গাড়িতে সম্ভব হলে আপনার পছন্দমতো জায়গায় বসুন। তবে জানালার পাশে বসলে হয়তো আপনার ভালো লাগতে পারে। তবে অনেকের আবার মাথা ঘোরার সমস্যা থাকে তাদের জানালার পাশে না বসায় ভালো।

* যদি আপনি জানালার পাশে বসতে পছন্দ করেন তাহলে নিচে বা উপরে না তাকিয়ে সরাসরি দূরে তাকিয়ে প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখুন, ভালো লাগবে।

* যতটা পারা যায় পিছনে না বসে সামনের দিকে বসতে চেষ্টা করুন। কারণ পিছনে ঝাঁকুনি বেশি লাগে।

* হেডফোন কানে দিয়ে পছন্দের গান শুনুন। তাহলে মনটা গানে মনোনিবেশ করবে এতে বমি বমি ভাবটা কম হবে।

* বমির সমস্যা যদি অনেক বেশি হয় তাহলে ডাক্তারের পরামর্শে ওষুধ খেতে পারেন।

* সবচেয়ে ভালো হয় যদি গাড়িতে ঘুমিয়ে যান, তাহলে সব সমস্যা শেষ। তাই ঘুমানোর চেষ্টা করুন।

* চাইলে গাড়িতে বই পড়তে পারেন কিংবা ল্যাপটপ বা মোবাইলেও সময় কাটাতে পারেন। তবে মাথা ঘোরার সমস্যা থাকলে এগুলো না করাই ভালো।

* যদি খুব বেশি সমস্যা হয় সাথে পলিথিন রাখুন বমি বমি ভাব হওয়ার চেয়ে বমি করা ভালো। কারণ বমি হয়ে গেলে ফ্রেশ লাগবে। তাই বমি চেপে রাখবেন না, এতে অস্বস্তি বাড়বে বৈ কমবে না।



এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।