সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

IMG_0364.JPG

শিক্ষামূলক আয়োজন বিইউবিটি আইটি ক্লাব আয়োজিত সেমিনারে ড. এম কায়কোবাদ

ড. এম কায়কোবাদ তার মূল্যবান বক্তব্যে ম্যাথ অলিম্পিয়াড ও কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এর নানা উল্লেখযোগ্য দিক তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ অল্পের জন্য ভারতের কাছে হারলেও, গনিত অলিম্পিয়াডে আমরা নিয়মিত তাদের হারাচ্ছি’।

গত শনিবার ২রা এপ্রিল বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ বিজনেস এন্ড টেকনোলোজির (বিইউবিটি) আইটি ক্লাবের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল এক বিশেষ সেমিনার। ‘রিসার্চ এন্ড কোকারিকুলার এক্টিভিটিস অফ দ্যা স্টুডেন্ট অফ কম্পিউটার সায়েন্স ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এই সেমিনারে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ম্যাথ অলিম্পিয়াড ও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার পথিকৃত ড. এম কায়কোবাদ।

সেমিনারের পুর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে আয়োজন করা হয় একটি ম্যাথ অলিম্পিয়াডের যেখানে প্রশ্নকর্তা এবং প্রধান বিচারক হিসেবে সামগ্রিক তত্ত্বাবধায়নে ছিলেন জন্য ড. এম কায়কোবাদ।

ম্যাথ অলিম্পিয়াড শেষে বিশ্ববিদ্যালয় অডিটেরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয় সেমিনারটি। সেমিনারটির সভাপতিত্ব করেছেন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ বিজনেস এন্ড টেকনোলজি’র ফ্যাকাল্টি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড অ্যাপ্লাইড সায়েন্সের সম্মানিত ডিন, ড. মমিনুল হক।

সেমিনারের শুরুতে সম্মানিত সভাপতি শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। এবং তারপর মূল বক্তা তার বক্তব্য রাখেন।

ড. এম কায়কোবাদ তার মূল্যবান বক্তব্যে ম্যাথ অলিম্পিয়াড ও কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এর নানা উল্লেখযোগ্য দিক তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ অল্পের জন্য ভারতের কাছে হারলেও, গনিত অলিম্পিয়াডে আমরা নিয়মিত তাদের হারাচ্ছি’।

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশকে অন্যান্য দেশের মানুষ গরীব দেশ বলে। কিন্তু আমাদের দেশ আসলে ধনী। কারন আমাদের মানব সম্পদ রয়েছে। এই সম্পদকেই আমাদের কাজে লাগাতে হবে’।

বাস্তবের জীবনের চমৎকার কিছু উদাহরণ দিয়ে তিনি বুঝান যে গনিত এবং প্রোগ্রামিং এর প্রতি শিক্ষার্থীদের আরো বুদ্ধিদীপ্ত ও আগ্রহী হতে হবে।

বক্তব্য শেষে প্রধান অতিথি ম্যাথ অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতার সেরাদের মাঝে উপহার বিতরণ করেন।

সেমিনার শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন আয়োজনের সেচ্ছাসেবদের মাঝে সার্টিফিকেট বিতরণ, বিইউবিটি আইটি ক্লাবের প্রাক্তন সদস্যের মাঝে সার্টিফেকেট বিতরণ এবং বর্তমান কমিটির সদস্যদের মাঝে আইডি কার্ড বিতরণ করা হয়। 


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।