সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

No-Smoking.jpg

ধূমপানের কারণ ও ছাড়ার উপায়

সমাজকে বাঁচাতে, পরিবারকে বাঁচাতে আজই ধূমপান পরিহার করার সিদ্ধান্ত নিন।

ধূমপান বিষপান। ধূমপানে আসক্ত ব্যক্তি ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যায়। আমাদের দেশে বর্তমানে ধূমপায়ীরা বিড়ি, সিগারেট বেশি ব্যবহার করছে। আজ ধূমপান ছাড়ার উপায়, কারণ ইত্যাদি সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করব।

ধূমপানের ক্ষতি:

  • তামাকে উত্তেজনা প্রদানকারী উপকরণ নিকোটিন থাকে। যা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিকর।
  • ধূমপান, ও তামাক সেবনের কারণে মুখ, গলা এবং ফুসফুসে ক্যান্সার হতে পারে।
  • হৃদপিন্ডের রোগ হতে পারে।
  • ধমনী শক্ত ও উচ্চ রক্তচাপ হয়।
  • পেটে আলসার হয়।
  • এসিডিটির সমস্যা হয়।
  • অনিদ্রা রোগ থাকলে তামাক সেবনের কারণে তা বেড়ে যেতে পারে।

ধূমপানের কারণ:

  • কখনও অন্যের দেখাদেখি পান করে।
  • কখনও খারাপ সঙ্গ বা বন্ধু-বান্ধবদের চাপে পড়ে।
  • বয়সের চেয়ে বড় দেখাতে চাওয়ার প্রবণতা।
  • সিনেমায় প্রিয় নায়কের ধূমপান করতে দেখে।
  • পারিবারিক অশান্তি, হতাশা, প্রেমে ব্যর্থ ইত্যাদি।
ধূমপান, জর্দা, তামাক এর নেশা ছাড়ার উপায়:
  • নেশা ছাড়তে মন থেকে নিয়্যত করতে হবে।
  • একেবারে ছাড়তে কষ্ট হলে আস্তে আস্তে মাত্রা কমিয়ে ছাড়তে হবে।
  • বন্ধু-বান্ধব, পরিচিতদের বলে দিতে হবে যে আপনি ধূমপান ছেড়ে দিয়েছেন। ফলে তারা আর আপনাকে জোর করবে না।
  • ডায়েরীতে লিখে রাখতে পারেন যে আপনি কতদিনে ধূমপান ছাড়বেন আর কোনদিন কত মাত্রায় ধূমপান করবেন।
  • সিগারেট, তামাক, দিয়াশলাই কাছে থাকলে আজই ফেলে দিবেন।
  • খাবার গ্রহণ এবং জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে হবে।

নেশা ছাড়ার আয়ুর্বেদিক কৌশল:

  • ৫০ গ্রাম মৌরি এবং সমপরিমাণ থাইম (Thyme, পুদিনা বা মিন্ট জাতীয়) মিশ্রিত করে তাতে অল্প পরিমাণ লেবুর রস দিয়ে বিট লবণ দিন। একটি কৌটায় নিয়ে পকেটে রাখবেন। যখন সিগারেট এর নেশা উঠবে তখন কিছু দানা মুখে নিয়ে চিবাতে থাকবেন। এই মিশ্রণ অজীর্ণ, অরুচি, গ্যাস, এসিডিটি ইত্যাদি থেকেও আরাম দিতে সক্ষম।
  • কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস ও মধু মিশিয়ে পান করতে হবে। এটি নেশা কমায় এবং শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে।
  • একটি প্যাকেটে শুকনো আমলকী, এলাচ, মৌরি, হরতকী রাখবেন। যখন ধূমপান করতে ইচ্ছে করবে তখন এগুলো চিবাতে থাকবেন। ধূমপানের নেশা তাড়ানোর পাশাপাশি তিক্ত ঢেকুর, ক্ষুদামন্দা, পেট ফাঁপা ইত্যাদি দূর করে।
নেশা ছাড়ায় কিছু লক্ষণ প্রকাশ:
ধূমপান ছাড়লে কিছু লক্ষণ প্রকাশ পেতে পারে। লক্ষণগুলো খুবই চিন্তায় ফেলে দিতে পারে। এগুলোকে উইড্রাল সিম্পটম বলে। লক্ষণগুলো হল:
  • চিন্তা, অস্থিরতা, ক্ষুধামন্দা, হৃদপিন্ড ধড়ফড় করা,
  • অনিদ্রা, অতিরিক্ত ঘাম ঝরা,
  • নেশার প্রতি তীব্র ইচ্ছা জাগা, অবসাদ ও মাথা ধরা।

যদি লক্ষণগুলো খুব বেশি সমস্যা না করে তবে আয়ুর্বেটিক উপায়গুলো মেনে চলতে হবে।

সাধারণত কিশোর ও যুবক বয়সেই ধূমপানে আসক্ত হবার সম্ভাবণা বেশি থাকে। পরিবার ও যুব সমাজ ধ্বংসের জন্যও ধূমপানকে দায়ী করা হয়। তাই সমাজকে বাঁচাতে, পরিবারকে বাঁচাতে আজই ধূমপান পরিহার করার সিদ্ধান্ত নিন।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।