সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

সুস্থ থাকতে প্রতিদিনের খাবারে যোগ করতে পারেন ১০টি সুপার ফুড

স্বভাবজাত ভাবেই বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে আমাদের দেহের অঙ্গপ্রতঙ্গের এবং  হজমতন্ত্রের বিভিন্ন সমস্যা মোকাবেলা করতে হয়। তবে সবচেয়ে আশার কথা হচ্ছে যে, আমাদের আশেপাশেই সহজলভ্য কিছু সুপারফুড আছে যা এই সমস্যাগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারে এবং প্রতিকারও করতে পারে। স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি থেকে শুরু করে চুল পড়া রোধ করার মত বিভিন্ন সমস্যা যেসব সুপার ফুডের মাধ্যমে সমাধান করা সম্ভব তা সম্পর্কে কিছুটা ধারণা এখানে পেতে পারেন-

 

গাজর-

এটি এমন একটি সুপারফুড যা নিয়মিত খেলে দেহের অনেক সমস্যা থেকে দূরে থাকা সম্ভব। গাজর গ্লুটাথাইয়ন নামক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এ পূর্ণ থাকে যা লিভারের দূষণ রোধ করতে সাহায্য করে। এছাড়াও এতে থাকে উদ্ভিজ ফ্ল্যাভোনয়েড এবং বিটাক্যারোটিন। নিয়মিত গাজর খাওয়ার ফলে তা লিভারকে উদ্দীপিত করতে এবং  লিভারের সামগ্রিক কার্যক্রমকে উন্নত করতে সাহায্য করে।

 

বেগুন-

বেগুন সাধারণত মস্তিস্কের জন্য খুবই উপকারি সবজি হিসেবে পরিচিত কারন এতে থাকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা মস্তিস্কের কোষ ঝিল্লীকে রক্ষা করতে পারে। এছাড়া বেগুনে অ্যান্থোসায়ানিন নামক পুষ্টি উপাদান থাকে যা স্মৃতিশক্তি হ্রাস পাওয়ার হাত থেকে মস্তিস্ককে রক্ষা করে।

 

পালংশাক-

পুষ্টিতে ভরপুর একটি সবুজ সবজি হচ্ছে পালংশাক যা চমৎকার একটি স্বাস্থ্যকর খাবার।এছাড়া এটি চুলের জন্য অত্যন্ত উপকারি।কারন পালংশাক বিটাক্যারোটিনের সবচেয়ে ভালো একটি উৎস এবং ফোলেট ও আয়রনেরও চমৎকার উৎস যার সবগুলোই চুলের জন্য ভালো।

ব্রকলি-

অনেক ধরনের স্বাস্থ্য উপকারিতার জন্য ব্রকলি পরিচিত থাকলেও আমরা হয়ত অনেকেই জানি না যে ব্রকলি মস্তিস্কের জন্যও অনেক বেশি উপকারি। কারন ব্রকলি পটাসিয়ামে ভরপুর যা স্নায়ুতন্ত্রের জন্য খুবই অত্যাবশ্যকীয় একটি উপাদান এবং সেই সাথে এটি মস্তিস্কের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ। এমনকি গবেষণায় এটাও দেখা গেছে যে ব্রকলি মস্তিস্কের কোনো জখম ভালো করার ক্ষেত্রেও সাহায্য করতে পারে।

 

আখরোট-

আমাদের মস্তিস্কের জন্য আরো একটি উত্তম খাবার হচ্ছে আখরোট। আখরোটে থাকে ডোকোসাহেক্সাইনোইক এসিড বা ডিএইচএ(DHA)নামক এক প্রকার অত্যাবশ্যকীয় অমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড। হার্ভার্ড এর সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় পাওয়া যায় যে নিয়মিতভাবে বাদাম খাওয়া দীর্ঘায়ু হওয়ার সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত এবং প্রাপ্তবয়স্কদের জ্ঞানকে সঠিকভাবে ব্যবহারের ক্ষমতাকে উন্নত করতেও সাহায্য করে।  

মাত্র পোনে এক কাপ আখরোট প্রতিদিনের DHA এর চাহিদার ১০০% পূরণ করতে সক্ষম। তাই এটা নিয়মিয় খাওয়া উচিত।

 

তৈলাক্ত মাছ-

অত্যাবশ্যকীয় ফ্যাটি এসিড (EFAs) আমাদের দেহে তৈরি হতে পারেনা। এটি খাবারের মাধ্যমে আমাদের গ্রহন করতে হয়। ইপিএ (EPA) এবং ডিএইচএ (DHA) এর মত অত্যন্ত কার্যকর অমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড সাধারণত তৈলাক্ত মাছ গুলোতে পাওয়া। এগুলো হার্টের কার্যক্ষমতা বাড়ায় এবং স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়া প্রতিরোধ করে মস্তিস্কের অবস্থা উন্নত করতে সাহায্য করে।

 

সূর্যমুখী বীজ-

যাদের চুল পড়ার সমস্যা রয়েছে তাদের প্রতিদিনের খাবার তালিকায় সূর্যমুখী বীজ রাখা উচিত। কারন এই বীজ ভিটামিন ই, ভিটামিন বি৬, জিঙ্ক এবং আয়রন সহ চুলের জন্য উপকারি সব পুষ্টিউপাদানে ভরপুর থাকে।

 

রোজমেরি-

এটি হচ্ছে এক ধরনের ভেষজ মশলার উদ্ভিদ। যদিও এটি আমাদের দেশে খুব বেশি সহজলভ্য নয় তবে পাওয়া যায়। এতে থাকে কারনোসিক এসিড নামক উপাদান যা আলঝেইমারের মত বিভিন্ন কঠিন রোগ থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। বিজ্ঞানীরা গবেষণায় পেয়েছেন যে রোজমেরির ব্যতিক্রম ধর্মী সুগন্ধ মানুষের জ্ঞান বাড়াতে ও উন্নত করতে একটি উৎকৃষ্ট সুপারফুড হিসেবে কাজ করে।

 

অ্যাভোকাডো-

যদিও এটা আমাদের দেশীয় ফল নয় তবে এটা আমাদের দেশে এখন পাওয়া যায়। অ্যাভোকাডো হচ্ছে লিভারের জন্য আরো একটি সুপারফুড। এটি গ্লুটাথাইয়ন নামক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উৎপাদনকারী যৌগতে ভরপুর থাকে। যা লিভারকে পরিস্কারের জন্য কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। গবেষণায় দেখা গেছে যে সপ্তাহে একটি বা দুইটি অ্যাভোকাডো যদি খাওয়া যায় তাহলে তা লিভারের অবস্থা কার্যকরভাবে উন্নত করতে সাহায্য করে।

 

ব্লুবেরি-

বিজ্ঞানীদের গবেষণা মতে যদি স্মৃতিশক্তিকে উন্নত করতে চাওয়া হয় তাহলে ব্লুবেরি খাবার তালিকায় রাখা উচিত। কারন বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেছেন যে ব্লুবেরির মত ফাইটোক্যামিকেল সমৃদ্ধ খাবারগুলো বয়সজনিত স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়া প্রতিরোধে সাহায্য করে। যেকোনো কিছুতে যোগ করে এই সুপার ফুডটি খাওয়া সম্ভব।

 

   

 

জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ

এক্স ডায়েটিশিয়ান, পারসোনা হেল্‌থ

খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান(স্নাতকোত্তর)(এমপিএইচ)

নিউট্রিশন এবং ডায়েট থেরাপিতে বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।