সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

Puli-Pitha-Recipe.jpg

লোপা সাঈদা'স সহজ ও মজাদার পুলি পিঠার রেসিপি

স্টিমারে ৩০ মিনিট বা পিঠা না হওয়া পর্যন্ত স্টিম করতে হবে। স্টিমার না থাকলে হাঁড়িতে পানি দিয়ে তার উপর ছিদ্র করা পাতিল রেখে পিঠা সিদ্ধ করতে পারেন।

গুটি গুটি পায়ে শীতকাল চলে আসছে। আর এই শীতকাল মানেই পিঠা খাওয়ার ধুম পড়ে যায়। অনেকেই আছেন যারা পিঠা খেতে পছন্দ করেন কিন্তু বানাতে পারেন না। তাই তাদের কথা ভেবেই আজকের আয়োজন খুব সহজ ও মজাদার করে পুলি পিঠা বানানোর রেসিপি।

উপকরণ:

পুরের জন্য:

  • নারকেল কুড়ানো - ২ কাপ,
  • খেজুরের গুড় - ১ কাপ
  • চালের গুড়া - ২ টেবিল চামচ (হালকা টেলে নেয়া )
  • এলাচি গুড়া - ১/২ চা চামচ

ডো এর জন্য:

  • চালের গুঁড়া (আতপ চাল) -৩ কাপ,
  • ময়দা - ১ কাপ,
  • পানি - ৩ কাপ,
  • সয়াবিন তেল - ১ টেবিল চামচ
  • লবন - পরিমানমতো

প্রণালী:

  • নারকেল কুড়ানো, খেজুরের গুঁড়, টেলে নেয়া চালের গুঁড়া, এলাচি গুড়া এই সব উপকরণগুলো একসাথে জ্বাল দিতে হবে। আঠালো হয়ে আসলে নামিয়ে ফেলতে হবে।
  • একটি হাড়িতে পানি নিয়ে তাতে অল্প লবণ ও তেল দিয়ে ফুটাতে হবে। ফুটে উঠলে চালের গুঁড়া ও আধা কাপ ময়দা দিয়ে নাড়তে হবে। ভালভাবে নেড়ে মিশে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে একটু ঠাণ্ডা করে, ডো বানাতে হবে। যদি কিছুটা নরম থাকে ময়দা মিশিয়ে ঠিক করতে হবে। অনেক্ষন মথে একটা মসৃণ ডো বানাতে হবে।
  • এবার ছোট ছোট গোল চ্যাপ্টা রুটির মত করে মাঝে নারকেলের তৈরি করা মিশ্রন কিছুটা দিয়ে দুই মাথা বন্ধ করে দিতে হবে। হাতে বানাতে না পারলে পিঠার ছাঁচেও বানাতে পারেন।
  • এবার স্টিমারে ৩০ মিনিট বা পিঠা না হওয়া পর্যন্ত স্টিম করতে হবে। স্টিমার না থাকলে হাঁড়িতে পানি দিয়ে তার উপর ছিদ্র করা পাতিল রেখে পিঠা সিদ্ধ করতে পারেন।
  • হয়ে গেলে একটি চালুনিতে রেখে বাতাসে ছড়িয়ে দিন।
শীতের সকালে গরম গরম পুলি পিঠা খেয়ে নিন।
এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।