সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

12391295_10203801956768573_7404962364339492154_n.jpg

প্রাণে প্রাণ মেলাতেই প্রকৃতি সাজে নিত্য নতুন রুপে জাবিতে শীত বরণিয়া ‘হিম উৎসব’

প্রকৃতির সকল কিছুকেই ঘটা করে বরণ করে নেয় এখানকার শিক্ষার্থীরা। সংস্কৃতির রাজধানীতে এমনটা হওয়াটাইতো স্বাভাবিক। তাছাড়া প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি বলা হয় যে ক্যাম্পাসকে প্রকৃতির নতুন রুপে সেখানকার অধিবাসীরা আলোড়িত হবেনা, আলোড়িত করবে না এটা কি কখনো হয়!

শীত বরণে জাবি শিক্ষার্থীরা নিয়েছে চিত্তাকর্ষক এক উদ্দ্যোগ। ‘হিমোচ্ছ্বাসের এই নগরে প্রাণে প্রাণ মেলাবোই’ এই শ্লোগানকে ধারণ করে রবিবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শুরু হয়েছে দুই দিন ব্যাপী ‘হিম উৎসব-২০১৫’।

 ‘পরম্পরায় আমরা’ নামক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদরে একটি সংগঠন আয়োজন করেছে এ উৎসবের। নবীন ও   প্রবীণ শিক্ষার্থীদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে শীত বরণিয়া এ উৎসব।

হিম উৎসবের প্রথম দিন সকালে শহীদ মিনার চত্বরে দেশবরেণ্য শিল্পীদের অংশগ্রহণে আর্ট ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে। দিনব্যাপী আর্ট ক্যাম্পে ছবি এঁকেছেন শিল্পী বীরেন সোম, এ এস এম জামিল আকবর শামীম, সৈয়দ জাহিদ ইকবাল, শাফিন ওমর, এম এম ময়েজ উদ্দিন, পারভেজ হাসান রিগান, শাহানুর মামুন, আজমির হোসেন, সৌরভ চৌধুরী, শামীম রেজা এবং ফারজানা ঊর্মি।

দিনব্যাপী আর্ট ক্যাম্পের পরে বিকেলে ট্রান্সপোর্ট চত্বরে কবিতা পাঠের আসরে কবিতা পাঠ করেছেন কবি কাজল শাহনেওয়াজ, আহমেদ নকীব, কামরুজ্জামান কামু, শামীম রেজা, সুমন সাজ্জাদ, সঞ্জীব পুরোহিত, সাবেরা তাবাসসুম এবং শাহনেয়াজ নাসরীন। 

ক্যাম্পাসের সুপারি তলায় সন্ধ্যা থেকে শুরু হয়েছে ‘বাউল রাত’। মধ্যরাত পর্যন্ত বাউল গানে শ্রোতাদের মন্ত্রমুগ্ধ করছেন টুনটুন বাউল ও তার দল।
 
সোমবার উৎসবের দ্বিতীয় দিনে সকাল থেকে থাকছে আলোকচিত্র ও আর্ট ক্যাম্পের ছবি নিয়ে প্রদর্শনী। বিকেলে মুক্তমঞ্চে রশিদ হারুনের পরিচালনায় থাকছে পুতুল নাচ এবং সন্ধ্যায় প্রথম বাংলা ব্যান্ড ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’কে উৎসর্গ করে কনসার্ট।
 
‘মহীনের ঘোড়াগুলিকে শ্রদ্ধাঞ্জলি’ শীর্ষক এই কনসার্টে গান গাইতে আসছেন- সহজিয়া, কফিল আহমেদ, চিৎকার, বিস্কুট, সিনা হাসান, নিউ সোনার বাংলা সার্কাস পার্টি, আকিল আশরাফ, সায়েম জয়, সৈয়দ ফরহাদ, সানি এন্ড দ্য সানফ্লাওয়ারসহ আরও অনেকে।
 
উৎসবের আয়োজকদের একজন চারুকলা বিভাগের শিক্ষার্থী নজির আমিন চৌধুরী জয় এ আয়োজন সম্পর্কে বলেন, ‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় হল সংস্কৃতির রাজধানী। প্রকৃতির সকল কিছুকেই আমরা বিভিন্ন আয়োজনে বরণ করে নিই। এসব উপলক্ষ নবীন-প্রবীনের মিলনেরও একটা সুযোগ করে দেয়। তারই অংশ হিসেবে শীতকে বরণ করার  জন্য আমাদের এ আয়োজন।’

হাসান আল মাহমুুদ, শিক্ষার্থী ও গণমাধ্যম কর্মী।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।