সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

Homemade-cereal-for-Babies.jpg

শিশুদের জন্য ঘরে তৈরি কিছু সিরিয়ালের রেসিপি

ঘরে তৈরি খাবারের চেয়ে স্বাস্থ্যকর খাবার আর কিছু হতে পারেনা। শিশুদের বুকের দুধের পাশাপাশি ৬ মাস বয়স থেকে বাড়তি খাবার দিতে হয়। তাই আমাদের সবার চেষ্টা থাকা উচিত ঘরে তৈরি খাবারই শিশুদের দেয়া।

চারদিকে এতো ভেজালের ভিড়ে আমরা নিজেরা কি খাব আর শিশুদের কি খেতে দেব সেই চিন্তা অনেকের মাঝেই থাকে। সুজি, চালের গুঁড়া থেকে শুরু করে সেরেলাক সব যদিও কিনতে পাওয়া যায় কিন্তু বিশ্বাস করা কঠিন হয়ে যায় কোনটা আসলেই ভালো আর কোনটা ভালো নয়।

খাবার অনুপযোগী ভেজাল দ্রব্য মেশানো, মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার সরবরাহ সহ সব দিকেই ভেজালের শেষ নেই। তাই বলে খাওয়া এবং খাওয়ানো তো বন্ধ রাখা যাবে না।  

শিশুদের ক্ষেত্রে তাই চেষ্টা করতে হবে যতদূর সম্ভব ঘরে তৈরি খাবার খাওয়াতে। কারন ঘরে তৈরি খাবারের চেয়ে স্বাস্থ্যকর খাবার আর কিছু হতে পারেনা। শিশুদের বুকের দুধের পাশাপাশি ৬ মাস বয়স থেকে বাড়তি খাবার দিতে হয়। তাই আমাদের সবার চেষ্টা থাকা উচিত ঘরে তৈরি খাবারই শিশুদের দেয়া। কিন্তু অনেকেই বুঝতে পারেন না কি খাবার কিভাবে দিবেন বা তৈরি করবেন।

সাধারণত শিশুদের প্রথম বাড়তি খাবার হিসেবে শুধু চালের সিরিয়াল দেয়া ঠিক না। কারন এতে শিশুর জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের পুষ্টি উপাদান থাকে না। কারন এগুলো হয় কম প্রোটিন সমৃদ্ধ শর্করা জাতীয় খাবার। তাই সব চেয়ে ভালো হয় যদি চালের সাথে অন্য কিছু মিশিয়ে সিরিয়াল বানিয়ে খাওয়ানো হয়।  

এখানে শিশুর জন্য ঘরে তৈরি করা যায় এমন কিছু মজাদার নরম সিরিয়ালের রেসিপি দেয়া হলো: 

আস্ত চালের সিরিয়াল
১ কাপ পানি ফুটিয়ে তাতে আধা কাপ লাল চাল বা বাসমতী চাল দিয়ে নেড়ে দিয়ে কম আঁচে ২০ মিনিট চুলায় রাখুন। মাঝে মাঝে একটু নেড়ে দিন। হয়ে গেলে নামিয়ে নিন। ঠান্ডা হওয়ার পর এর সাথে বুকের দুধ বা ফর্মুলা দুধ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন এবং এর সাথে নরম সবজির পিউরি মিশিয়ে খেতে দিন। যদি শিশু এভাবে খেতে সমস্যা হয় তাহলে ব্লেন্ড করে দিন।

অটমিল সিরিয়াল
এক কাপ পানি ফুটিয়ে নিয়ে তাতে ১/৪ কাপ অটমিল গুঁড়ো দিয়ে নেড়ে দিন। চুলার আঁচ কমিয়ে ১০ মিনিট রান্না করুন। মাঝে মাঝে নেড়ে দিন।খেয়াল রাখতে হবে যেন নিচে না লেগে যায়। তারপর নামিয়ে নিন। ঠাণ্ডা করে এর সাথে বুকের দুধ বা ফর্মুলা দুধ এবং পছন্দমত ফলের পিউরি মিশিয়ে শিশু খেতে পারে এমন কুসুম গরম অবস্থায় খেতে দিন। একদম ঠাণ্ডা হলে খেতে ভালো লাগবে না।

বার্লি সিরিয়াল
এক কাপ পানি ফুটিয়ে নিয়ে তাতে ১/৪ কাপ বার্লি গুঁড়ো দিয়ে নেড়ে দিন। চাইলে বার্লির সাথে অটমিল বা চালের গুঁড়োও মিশাতে পারেন। চুলার আঁচ কমিয়ে ১০ মিনিট রান্না করুন। মাঝে মাঝে নেড়ে দিন। তারপর নামিয়ে ঠাণ্ডা করে এর সাথে বুকের দুধ বা ফর্মুলা দুধ এবং যেকোনো ফলের রস মিশিয়ে শিশুদের খেতে দিন।

সুজির সিরিয়াল
১ কাপ পানি ফুটিয়ে তাতে ২ টেবিল চামচ সুজি দিয়ে কম আঁচে ১০ মিনিট চুলায় রান্না করুন। মাঝে মাঝে একটু নেড়ে দিন। খেয়াল রাখতে হবে যেন হাড়িতে না লেগে যায়। হয়ে গেলে নামিয়ে নিন। ঠান্ডা হওয়ার পর এর সাথে বুকের দুধ বা ফর্মুলা দুধ মিশিয়ে খেতে দিন। চাইলে এর সাথে কলা বা অন্য ফলের পিউরি যোগ করতে পারেন।

সিরিয়াল কতদিন ও কিভাবে রাখবেন
ঘরে তৈরি এসব সিরিয়াল গুলো নরমাল ফ্রিজে ৭২ ঘণ্টা রাখা যাবে। ফ্রিজ থেকে বের করে আবার গরম করে নিলেই হবে। সেক্ষেত্রে ফলের রস বা দুধ মিশিয়ে রাখবেন না। শিশুকে খেতে দেয়ার সময় সেগুলো মেশাবেন। পুরো সিরিয়াল নিয়ে একসাথে গরম না করে শিশুকে যততুকু দেবেন ঠিক ততটুকু বের করে গরম করুন।।

টিপস
শিশুর বয়স বাড়তে থাকার সাথে সাথে এসব সিরিয়ালের সাথে রান্নার সময় সামান্য কিছুটা ডালের গুঁড়ো, কিছুটা তেল এবং ডিম ফেটিয়ে মিশিয়ে দিতে পারেন। তাহলে সিরিয়ালগুলোর পুষ্টি আরো বৃদ্ধি পাবে।

-
লেখক: জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ; এক্স ডায়েটিশিয়ান,পারসোনা হেল্‌থ; খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান (স্নাতকোত্তর) (এমপিএইচ); মেলাক্কা সিটি, মালয়েশিয়া।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।