সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

dis.jpg

আরিফুন নেছা সুখী বাসা বদলের টিপস

জীবনধারণের প্রয়োজনে আমাদের অনেককেই গ্রামের বাড়ি ছেড়ে শহরের বিভিন্ন জায়গায় এসে ভাড়াবাড়িতে উঠতে হয়। আর প্রায়ই করতে হয় বাসা বদল। বাসা বদল মানেই ঝক্কি-ঝামেলা। একগাদা জিনিসপত্র আনা-নেয়া। তবে কিছু বিষয় মাথায় রেখে বাসা বদল করলে অনেক ঝামেলা সহজেই এড়ানো যায়। যেমন—

* খুব প্রয়োজনীয় জিনিসগুলোর একটি তালিকা তৈরি করুন। তালিকা মিলিয়ে সব জিনিস একসঙ্গে প্যাকেট করুন। খুব ভালো হয় প্যাকেটের ভেতরে রাখা প্রতিটি জিনিসের নাম প্যাকেটের গায়ে লিখে রাখলে বা একটা কাগজে লিখে প্যাকেটের সঙ্গে আটকে দিলে। আর যদি কাগজের টুকরোটা খুলে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে তাহলে ‘এক নম্বর, দুই নম্বর’ করে প্যাকেটের নাম্বারিং করে রাখুন। কোন প্যাকেটে কী রাখছেন, তা একটি নোটবুকে লিখে রাখুন, তাহলে আর জিনিসটা খুঁজে পেতে সব প্যাকেট খোঁজা লাগবে না। প্রয়োজনভেদে প্যাকেট তৈরি করুন।

* মশারি, বিছানার চাদর, বালিশের কভার এক প্যাকেটে রাখুন, অর্থাৎ ক্যাটাগরি ভাগ করে নিন। তাহলে সহজেই অনেক জিনিস একসঙ্গে পাবেন।
নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলো এক প্যাকেটে রাখুন, তা না হলে প্রয়োজনের সময় খুঁজে পাবেন না।

* ম্যাচ, কয়েল, মোমবাতি বা চার্জার লাইট, হাতপাখা, ছাতা—এগুলো আলাদা করে নিন। প্রয়োজনের সময় এগুলো খুঁজে পাওয়া যায় না। আর ইলেকট্রিক কাজ শেষ করতে একটু সময় লাগে, তাই হাতপাখা, মোমবাতি বা চার্জার লাইট, কয়েল, ম্যাচ—এগুলো প্রায়ই কাজে লাগে। আর ইলেকট্রিক লাইন ঠিক থাকলে বাসায় ওঠার পর প্রথমেই ফ্যান ও লাইট লাগিয়ে নিন। তাহলে অস্বস্তিতে পড়তে হবে না।

* বাসা বদলের ঝামেলায় মোবাইলটা ভুলেও সাইলেন্ট করে রাখবেন না, তাতে মোবাইল হারানোর ভয় থাকে। আর খুব প্রয়োজন না হলে সব মোবাইল ও চার্জার একটা ব্যাগে রেখে লক করে রাখুন। নানা ব্যস্ততায় মোবাইল আপনার কাজে ব্যাঘাত সৃষ্টি করতে পারে। তবে মোবাইল অফ করলে প্রয়োজনীয় ব্যক্তিদের আগেই জানিয়ে রাখুন—আজ আপনার ফোন বন্ধ থাকবে। আর মোবাইলে ফুল চার্জ দিয়ে রাখুন, বলা যায় না নতুন বাসায় ইলেকট্রিক প্রবলেম দেখা দিতেই পারে।

* সব কাজই একটু গুছিয়ে করলে সহজ ও সুন্দর হয়। তাই তাড়াহুড়া না করে ধীরে-সুস্থে হাতে সময় নিয়ে সব জিনিস আগে থেকে প্যাক করা শুরু করুন, দেখবেন বাসা বদলানোকে আর ঝক্কি-ঝামেলা মনে হবে না।

* টাকাপয়সা, মূল্যবান জিনিসপত্র, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আলাদ করে সাবধানে রাখুন।
বাসার সব জিনিসপত্র গোছানো হয়ে গেলে সবশেষে গ্যাসের চুলা খুলে নেবেন। আর বাসায় ওঠার পর সবকিছু করার আগে গ্যাসের চুলা লাগিয়ে নিন।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।