সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

Untitled.png

লোভনীয় ফুলকপির পরোটাঃ আলু নয়, ফুলকপি দিয়েই বানান মজাদার পরোটাঃ

আমার কন্যা তো ঘাস-ফুস খেতে চায়না, তাই তাকে ঘাস-ফুস খাওয়ানোর উপায় বের করেছিলাম একটা। প্রতি বছর তাকে ফুলকপির পরোটা খাইয়ে বলি-- আলু পরোটা। সে খেয়ে টেরও পায়না যে ফুলকপির পরোটা খাচ্ছে। আপনার বাচ্চাকেও করে দিতে পারেন ইয়াম্মি এই পরোটা। রেসিপি দেখে নেয়া যাক তাহলেঃ

ফুলকপির পরোটাঃ

যা প্রয়োজনঃ

ফুলকপি-- ছোটো ১ টা
আদা/রসুন বাটা-- ১/৪ চা চামচ করে
হলুদ গুঁড়া-- ১/২ চা চামচ
শুকনা মরিচ টালা-- ৪-৫টি
জিরা গুঁড়া-- ১ টে চামচ
তেল-- ২ টে চামচ
ধনেপাতা কুচি-- ২-৩ টে চামচ
ময়দা-- পরিমানমতো
লবণ-- স্বাদমতো
তেল-- ভাজার জন্যে

যেভাবে করবেনঃ

আদা-রসুন বাটা, হলুদ গুঁড়া ও সামান্য লবন দিয়ে ফুলকপি সেদ্ধ করে নিন। ঠান্ডা করে ফুলকপি চটকিয়ে তার সাথে শুকনা মরিচ, ধনেপাতা কুচি ও জিরা গুঁড়া দিয়ে ভালোভাবে মাখিয়ে নিন। মাখানো হলে ফুলকপির সাথে ২ টে চামচ তেল, স্বাদমতো লবন ও পরিমানমতো ময়দা দিয়ে ডো করে নিন। পানির দরকার নেই। ফুলকপির পানি দিয়েই ডো করা হয়ে যাবে। পরোটা বেলা যায়-- এমন পরিমান ময়দা দিয়ে ডো করবেন। ডো-টিকে ৭-৮ ভাগে ভাগ করে গোলাকার পরোটা বানিয়ে ছেঁকা তেলে গোল্ডেন করে ভেজে নিন।

** চিকেন ভুনা অথবা আলুর দম দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন, সকাল কিংবা বিকেলের নাস্তায়।

এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।